বিকৃত ঘটনায় তোলপাড়, নারীদের খাঁচায় আটকে মেটানো হত লালসা!

শুভদিন অনলাইন রিপোর্টার:

নারীদের বন্দী বানিয়ে তাদের ‘যৌন দাসী’ করে রাখার অভিযোগ উঠল অস্ট্রেলিয়ার সাবেক সেনাকর্মীর বিরুদ্ধে। জেমস রবার্ট ডেভিস নামের ওই সেনা সদস্যের এ বিকৃত ঘটনা সারা বিশ্বে তোলপাড় ফেলে দিয়েছে। খবর ডেইলি মেইলের।
জানা গেছে, জেমস রবার্ট ডেভিস তার নিউ সাউথ ওয়েলসের বাড়িতে বেশ কিছু নারীকে দীর্ঘ দিন ধরে যৌন দাসী করে রেখেছিলেন। তাদের গলায় স্টেনলেস স্টিলের স্ট্র্যাপ বেঁধে ধাতব খাঁচায় বন্দী করে রাখা হত বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয়, তিনি জোর করে ওই নারীদের পতিতাবৃত্তি করতে বাধ্য করতেন।
গতকাল বৃহস্পতিবার জেমস রবার্ট ডেভিসের গ্রামের বাড়িতে হানা দিয়ে একেবারে হতবাক হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল পুলিশ। তার বাড়ির ভিতর থেকে এমন কতগুলো খাঁচা উদ্ধার করে পুলিশ, যেখানে তিনি ওই নারীদের পশুর মতো বন্দী রাখতেন।
পুলিশ জানিয়েছে, ডেভিসকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে এমন চারটি বাক্স উদ্ধার করা হয়েছে, যার উপর নারীদের নাম খোদাই করা ছিল। এছাড়া বাড়ির ভিতর থেকে ঘটনার আলামত হিসেবে নানা জিনিসপত্র উদ্ধার কার হয়েছে।
উল্লেখ্য, অভিযুক্ত ডেভিস প্রায় ১৭ বছর অস্ট্রেলিয়া নিরাপত্তাবাহিনীতে কাজ করেছেন। পুলিশের নথি অনুসারে, ২০১২ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে ডেভিসের বিরুদ্ধে নারীদের যৌন দাস করে রাখার অভিযোগ আনা হয়েছিল। ডেভিস বন্দী বানানো মেয়েদের দিয়ে পতিতাবৃত্তি করাতে বাধ্য করতেন।

Related posts

Leave a Comment