মধুমঞ্চ প্রস্তুত করতে ব্যস্ত শ্রমিকেরা: একদিনেই শেষ হবে মধুকবির জন্মানুষ্ঠান

এস কে সুমন , কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি:

আগামি ২৫ জানুয়ারি বাংলা সাহিত্যে অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯৭তম জন্মবার্ষিকী। এ উপলক্ষে প্রতিবছর কবির জন্মভূমি যশোরের কেশবপুর উপজেলার কপোতাক্ষ নদ পারে সাগরদাঁড়িতে আয়োজন করা হয়ে থাকে সপ্তাহব্যাপী মধুমেলার। তবে এ বছর করোনা ভাইরাসের কারণে মধুমঞ্চে ২৫ জানুয়ারি (সোমবার) মধুকবির জীবনীর উপর আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এ লক্ষে চলছে মধুমঞ্চ সাজসজ্জা ও আলোক সজ্জার কাজ।
সরেজমিনে শরিবার সন্ধ্যায় মধুকবির জন্মভূমি সাগরদাঁড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, মধুকবির জন্মবার্ষিকী উদযাপন করার লক্ষে আয়োজক কমিটির উদ্যোগে গেট তৈরি, মধুমঞ্চ প্রস্তুত করাসহ আগত দর্শকদের বসার জন্য প্যান্ডেল তৈরিতে দিনভর ব্যস্ত সময় পার করছেন শ্রমিকেরা। বাঁশ দিয়ে তৈরি এসব কাজ রোববারের মধ্যেই শেষ হবে বলে জানা গেছে। মধুমঞ্চ প্রস্তুত করার সময় শ্রমিক ইয়াকুব আলী ও রাসেদ হোসেনের সাথে কথা হলে তারা জানান, সাতক্ষীরা সদরের ভালুখালী এলাকা থেকে তারা এসেছেন। গত ৪ দিন ধরে মধুমঞ্চ, গেট ও প্যান্ডেল তৈরির কাজ করছেন।
এদিকে সাগরদাঁড়ির মধুপল্লীতে বিভিন্ন স্থান থেকে আসতে শুরু করেছে পর্যটকরা। মধুপল্লীতে ঘুরার সময় কথা হয় পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর থেকে আসা সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার হিরামন বৈদ্য, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা মহাবিদ্যালয়ের প্রভাষক সুমন কুমার, সোনালী ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার প্রিন্স কুমার দাস, সুমা হালদার ও রমা মজুমদারের সাথে। তারা জানান, মাইকেল মধুসূদন দত্তের বই পড়ার পর বাস্তবে এই প্রথমবার সাগরদাঁড়িতে এসে ভালো লেগেছে। এ সময় হিরামন বৈদ্য বলেন, কপোতাক্ষ নদ পারে গিয়েছিলাম-নদের প্রবাহ থাকলে ভালো লাগতো।
সাগরদাঁড়ির আলোকচিত্র শিল্পী মুফতি তাহেরুজ্জামান বলেন, করোনার কারণে বড় পরিসরে এবার আর মধুমেলা হচ্ছে না। তবুও পর্যটকদের আগমন বাড়ছে।
এ সময় সাগরদাঁড়ি ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য সুবাস কুমার দেবনাথ বলেন, মধুমঞ্চ প্রস্তুতসহ গেট ও সাজসজ্জার কাজ পুরোদমে চলছে।
এ ব্যাপারে কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন বলেন, সামাজিক দূরত্ব মেনে সীমিত পরিসরে আগামী ২৫ জানুয়ারি ১ দিন মধুকবির জন্মবার্ষিকী উদযাপন করা হবে। যথাযোগ্য মর্যাদায় জন্মবার্ষিকী উদযাপন করার লক্ষে এ কর্মজজ্ঞ চলছে। করোনার কারণে এ বছর মেলা হবে না।

Related posts

Leave a Comment